সে বলে তোমার বিয়ের আগে হলে হয়তো বাড়ি

সে বলে তোমার বিয়ের আগে হলে হয়তো বাড়ি

সে বলে তোমার বিয়ের আগে হলে হয়তো বাড়ি ,বলতে পারতাম।এখন তুমি একটা ডিভোর্সি মহিলা।

ডিভোর্সি মহিলাকে বিয়ে কোনো পরিবার মেনে নিবে? আর আমি ভাবছিলাম তুমি দেনমোহরের টাকা

পাবে সেটা দিয়ে না হয় বিয়ে করে নিবো। পরে ২-১ বছর পরে বাড়িতে আসলে ঠিক হয়ে যাবে।কিন্তু এখন

তুমিই টাকা দিতে পারবেনা। তাই আমিও বিয়ে করতে পারবো না। আর আমি তোমাকে আজ থেকে ভালোবাসিনা।

আমাকে আর ফোন দিবা না এটা বলেই সে ফোন কেটে দেয়। আমি ফোন দিলে আর রিসিভ করে না।

আরও ভালবাসার গল্প পেতে ভিজিট করুউঃ logicalnewz.com

সে বলে তোমার বিয়ের আগে হলে হয়তো বাড়ি

আমি কার জন্য সব ছেড়ে চলে আসলাম, আজ সে আমাকে এই কথা বলতেছে? কার জন্য আমি এতো

কিছু করলাম। আমি এখন কোন দিকে যাবো। আমি আমার বাবা মা’কে কি বলবো। আর যদি আমি আবার

আমার স্বামীর কাছে ফিরে যাই, তবে উনার সামনে আমি কোন মুখে দাঁড়াবো। কি বা জবাব দিবো ওনার কথা

গুলোর৷ আমার চারদিক অন্ধকার হয়ে আসে। এতো কিছুর চাপ সহ্য করতে না পেরে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই।

ওনারা আমার অজ্ঞান হওয়াটাকে সেই ভাবেই দেখে যেভাবে আট আট দশটা নব বিবাহিত মেয়ের মাথা ঘুরে

পরে যাওয়া আর অজ্ঞান হয়ে যাওয়াটাকে দেখে। মানে আমি প্রেগনেন্সির কথা বলতেছি আর কি।

কিন্তু আমি তো জানি, যে আসলে কি হয়েছে। আম্মু চলে গেলে আমি ভাবীকে বলি যে, ভাবী তোমরা যা ভাবছো

আসলে তা না আমার অনেক টেনশন হচ্ছিলো

যার ফলে এমনটা হয়েছে।আর আমার গনেন্ট হওয়ার সুযোগ নেই।উনার সাথে আমার তেমন কোন

সম্পর্কই ছিল না। আমার ভাবী বলে, কি বলছো তুমি এসব, ও তোমাকে ১ম থেকেই মেনে নেইনি সেটা তুমি

আমাদের বলোনি কেনো আমি কি বলব ভেবে পাইনা। কারন উনিতো আমাকে মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানায়নি।

আমার জন্যই তো এই সব হলো। তাই আমি আর কোনো উওর দিতে পারিনি, শুধু বলি ভাবী বাদ দিন তো

পর দিন আমি আবার আমার বয়ফ্রেন্ড কে ফোন দিই। তখন ও আমাকে যেই কথা গুলো বলল, তা শুনে আমার ই

চ্ছা করছিলো এখনি আমার পায়ের নিচের মাটি দুভাগ করে ডুকে যাই, আমার আর এই পৃথিবীতে

সে বলে তোমার বিয়ের আগে হলে হয়তো বাড়ি

থাকার প্রয়োজন নেই৷ যাকে এতো বছর ধরে ভালোবাসি। যার মায়ায় আমি স্বামী সংসার ছেড়ে চলে এসেছি। যার জন্য আমার স্বামীর মনে কষ্ট দিয়েছি৷ আমার অসুস্থ শাশুড়ীর মনে কষ্ট নিয়ে পৃথিবী ত্যাগ করতে হয়েছে।

সে কিনা আজকে বলল, আমি কেবল তোমার টাকা গুলোর জন্যই বিয়ে করতে চেয়েছিলাম,এখন তুমি নাকি টাকাই খরচ করতে পারবে না।আমি অতো টাকা কোথাও পাবো না, আর বিয়েও করতে পারবো না।

আর বাড়িতে আমি একজন অবিবাহিত ছেলে হয়ে যদি একটা ডিভোর্সি মেয়েকে বিয়ের কথা বলি, তবে আমার বাবা আমাকে ত্যাজ্য পুত্র ও করতে পারেন। আমি তোমাকে বিয়ে করতে পারব না৷ আর ভালো’ও বাসি না।আমাকে আর ২য় বার কল দিবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *