Home / ধর্ম / সুলতান সেলিম মসজিদে সাড়ে ৪শ’ বছরের পুরনো কুরআন

সুলতান সেলিম মসজিদে সাড়ে ৪শ’ বছরের পুরনো কুরআন

তুরস্কের কোনিয়া প্রদেশের কারাপিনার জেলার ঐতিহাসিক সুলতান সেলিম মসজিদে পাওয়া গেছে ৪৫০ বছরের পুরনো কুরআন মজিদ। উসমানিয়া সুলতান দ্বিতীয় সেলিমের নির্মিত এই মসজিদের সংরক্ষণাগার থেকে হাতে লেখা মোট ১০ খ- কুরআনের কপি পাওয়া গিয়েছে। কারাপিনার জেলার মুফতি ইউনুস আয়দিন বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে বলেন, এই কুরআনগুলো পেয়ে তারা উচ্ছ্বসিত।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

তিনি জানান, মসজিদে হাতে লেখা কুরআনের এই পা-ুলিপিগুলোর খবর কেউই জানতো না ও দীর্ঘদিন তা মসজিদের সংরক্ষণাগারেই পড়ে ছিলো। ইউনুস আয়দিন বলেন, আমরা মাত্রই তা পেলাম। এটি বর্তমান সময় পর্যন্ত অজানা ছিলো। আমরা সম্পূর্ণ কুরআনের খ-গুলো পাইনি। তিনি বলেন, আমরা যখন এটি পরীক্ষণ করি, এখানে সুলতান দ্বিতীয় সেলিম ও কারাপিনারের নাম খুঁজে পাই।

এই সম্পর্কে আমরা আঙ্কারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ধর্মতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক মুস্তফা আশকারের সাথে যোগাযোগ করি। তিনি যখন বলেন, এই দলিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আমরা মসজিদে তা প্রদর্শনের ব্যবস্থা করি। কারাপিনারের মুফতি বলেন, সুলতান সেলিম খান শাহজাদা থাকা অবস্থায় কোনিয়ায় অবস্থানকালে, কারাপিনারে বিভিন্ন কাজ করেন। কারাপিনারের জন্য তিনি সুন্দর ও সুচারুভাবে লিখিত ৩০ খ-ের কুরআনের মাসহাফ উপহার দিয়েছিলেন।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

কিন্তু আমাদের কাছে এর ১০ খ- রয়েছে। কুরআনের খ-গুলোর ভেতরে কারাপিনার শহরকে এই মাসহাফ উপহার দেয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে বলে জানান তিনি। কারাপিনার জেলার গভর্নর ওউজ জেম মুরাদ বলেন, এই ঘটনায় আমরা সবাই উচ্ছসিত। মুফতি সাহেব ও আমাদের সহকর্মীদের উদ্যোগে মসজিদের সংরক্ষণাগার থেকে আমরা মহামূল্যবান এই সম্পদ পেয়েছি। সুলতান দ্বিতীয় সেলিম শাহজাদা থাকা অবস্থায় তার বাবা সুলতান সুলাইমানের শাসনামলে ১৫৬৩ সালে এই মসজিদ নির্মাণ করেন। ডেইলি সাবাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*